BREAKING

আপনার যা প্রয়োজন এখানে সার্চ করুন

শনিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর |নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায় প্রশ্ন উত্তর PDF |Class 9 history 1st chapter question in bengali pdf

 ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক নবম শ্রেণির ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর |নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায় প্রশ্ন উত্তর PDF |Class 9 history 1st chapter question in bengali pdf

 

আজ আমি তোমাদের জন্য নিয়ে এসেছি  নবম শ্রেণির ইতিহাসের প্রথম অধ্যায়  ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক প্রশ্ন উত্তর PDFClass IX first chapter question Pdf in bengali | WB Class Nine history question in bengali |WBBSE পরীক্ষা প্রস্তুতির জন্য নবম শ্রেণি ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর pdf গুরুত্বপূর্ণ ভাবে তোমাকে সাহায্য করবে।


তাই দেড়ি না করে এই পোস্টের নীচে দেওয়া Download লিংকে ক্লিক করে |নবম শ্রেণি ইতিহাস প্রথম অধ্যায় ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর pdf download । Class ix History 1st chapter important Question in Bengali Pdf  ডাউনলোড করো । এবং প্রতিদিন বাড়িতে বসে প্রাক্টিস করে থাকতে থাক।ভবিষ্যতে আরো গুরুত্বপূর্ণ Note ,Pdf , Current Affairs,ও প্রতিদিন মকটেস্ট দিতে আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।


 ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক নবম শ্রেণির ইতিহাসের প্রশ্ন উত্তর নিচে দেওয়া হলো।


 ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক mcq প্রশ্ন

1.


নবম শ্রেণি ইতিহাস প্রথম অধ্যায় 1 নম্বরের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর [একটি বাক্যে উত্তর দাও]

নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায়ের প্রশ্ন উত্তর

ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক 1 নং প্রশ্ন উত্তর

1 কে ফ্রান্সকে ভ্রান্ত অর্থনীতির জাদুঘর’ (Museum of Economic Errors) বলেছেন?

উত্তর অ্যাডাম স্মিথ ফ্রান্সকে ভ্রান্ত অর্থনীতির জাদুঘর’ (Museum of Economic Errors) বলেছেন।

2 ‘দ্য ওয়েলথ অফ নেশনস' (The Wealth of Nations) গ্রন্থের রচয়িতা কে?

উত্তর। দ্য ওয়েলথ অফ নেশনস (The Wealth of Nations) গ্রন্থের রচয়িতা হলেন অ্যাডাম স্মিথ।

3 । ফরাসি বিপ্লব কত খ্রিষ্টাব্দে শর হয়েছিল ?

উত্তর। ফরাসি বিপ্লব ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে শুরু হয়েছিল।

41 ফরাসি বিপ্লবের সূচনাকালে ফ্রান্সের রাজা কে ছিলেন?

উত্তর। ফরাসি বিপ্লবের সূচনাকালে ফ্রান্সের রাজা ছিলেন ষােড়শ লুই।

5 | ষোড়শ লুই কে ছিলেন ?

উত্তর। ফরাসি বিপ্লবের সময় ফ্রান্সের রাজা ছিলেন যােড়শ লুই।

6 ষােড়শ লুই কোন বংশের রাজা ছিলেন ?

উত্তর। যােড়শ লুই বুরবো বংশের রাজা ছিলেন।

@ মেরি আঁতােয়ানেৎ কে ছিলেন?

উত্তর। মেরি আঁতােয়ানেৎ ছিলেন রাজা ষােড়শ লুই-এর পত্নী।

[92 ফ্রান্সের বুরবো রাজারা কোন্ তত্ত্বে বিশ্বাসী ছিলেন?

উত্তর ফ্রান্সের বুরবো রাজারা রাজার দৈবস্বত্বে বিশ্বাসী ছিলেন।

9 আমিই রাষ্ট্র'– এই বিখ্যাত উক্তিটি কার?

উত্তর। ফরাসি সম্রাট চতুর্দশ লুই বলেছিলেন, “আমিই রাষ্ট্র’ (I am the state)।

10 ইনটেনডেন্ট করা ?

উত্তর ফ্রান্সে প্রাক্-বিপ্লব পর্বে রাজস্ব আদায়কারী কর্মচারীরা

ইনটেনডেন্ট নামে পরিচিত ছিল। 

[ 11 ফ্রান্সে কত ধরনের প্রত্যক্ষ কর ছিল?

ডিক্স ফ্রান্সে তিন ধরনের প্রত্যক্ষ কর ছিল।

12 ফ্রান্সে প্রচলিত প্রত করের নাম লেখাে।

উত্তর ফ্রান্সে প্রচলিত প্রত্যক্ষ করের নাম হল- টেইলি,ক্যাপিটেশন, ভিংটিয়েমে।

13 টেইলি কী?

উত্তর। টেইলি হল ফ্রান্সের একপ্রকার ভূমিকর। এটি ছিল প্রত্যক্ষ কর।

14/ক্যাপিটেশন কী ?

উত্তর ফ্রান্সের প্রত্যক্ষ করগুলির মধ্যে অন্যতম ক্যাপিটেশন ছিল একপ্রকার উৎপাদনকর।

| 15 ভিংটিয়েমে কী?

উত্তর ভিংটিয়েমে ছিল ফ্রান্সের একপ্রকার আয়কর।

16ফ্রান্সে লবণ কর কী নামে পরিচিত ছিল?

উত্তর ফ্রান্সে লবণ কর গ্যাবেলা নামে পরিচিত ছিল।

17।। ফ্রান্সে ধর্মর্কর কী নামে পরিচিত ছিল ? অথবা, টাইথ কী ?

উত্তর ফ্রান্সে ধর্মর্কর টাইথ নামে পরিচিত ছিল।

18। করভি কী?

উত্তর করভি ছিল ফ্রান্সে প্রচলিত একপ্রকার কর, যাতে বাধ্যতামূলকভাবে বিনা পারিশ্রমিকে বেগার খাটতে হত।

12.যাজক কাদের বলা হত?

উত্তর যাজক হলেন কোনাে একটি নির্দিষ্ট ধর্মের প্রথাগত নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিত্ব। বিভিন্ন ধর্মে যাজকদের ভূমিকা এবং কার্যাবলি বিভিন্ন রকম।

20_j চার্চ বা যাজকেরা জনসাধারণের কাছ থেকে কোন্ কর আদায় করতেন?

উত্তর চার্চ বা যাজকেরা জনসাধারণের কাছ থেকে টাইথ বা ধর্মকর আদায় করতেন।

21 | ফরাসি যাজকেরা রাজাকে কী কর প্রদান করতেন?

উত্তর ফরাসি যাজকেরা রাজাকে স্বেচ্ছাকর নামে একপ্রকার কর প্রদান করতেন।

22_j ঐতিহাসিক ডেভিড থমসন কোন বিষয়কে বৈপ্লবিক পরিস্থিতি’ (Revolutionary Situation) বলেছেন?

উত্তর ঐতিহাসিক ডেভিড থমসন ফ্রান্সের প্রাক্-বিপ্লব জটিল অর্থনৈতিক পরিস্থিতি-কে ‘বৈপ্লবিক পরিস্থিতি’ বলেছেন।

23 বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজ কয়টি সম্প্রদায়ে বিভক্ত ছিল ?

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজ তিনটি সম্প্রদায়ে বিভক্ত ছিল।

24_j বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে কারা প্রথম সম্প্রদায়ভুক্ত ছিলেন?

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে যাজকরা প্রথম সম্প্রদায়ভুক্ত ছিলেন।

25_ বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে অভিজাতরা কোন্ সম্প্রদায়ভুক্ত ছিলেন ?

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে অভিজাতরা দ্বিতীয় সম্প্রদায়ভুক্ত ছিলেন।

26 ‘প্যাট্রিশিয়ান’ কারা ?

উত্তর। ফরাসি বিপ্লবের আগে ফরাসি সমাজের অভিজাতরা। ‘প্যাট্রিশিয়ান’ নামে পরিচিত ছিলেন।

27 বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে বুর্জোয়ারা কোন্ সম্প্রদায়ভুক্ত। ছিলেন?

উত্তর। বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে বুর্জোয়ারা তৃতীয় সম্প্রদায়ভুক্ত ছিলেন।

T 28। প্রাক্-বিপ্লব ফ্রান্সে কৃষক ও শ্রমিকরা কোন সম্প্রদায়ভুক্ত। ছিল?

উত্তর প্রাক্-বিপ্লব ফ্রান্সে কৃষক ও শ্রমিকরা তৃতীয় সম্প্রদায়ভুক্ত ছিল।

29 ‘প্লেবিয়ান’ কারা?

উত্তর ফরাসি বিপ্লবের আগে ফরাসি সমাজের তৃতীয় শ্রেণির মানুষরা ‘প্লেবিয়ান’ নামে পরিচিত ছিল।

30 সাঁকুলােৎ কাদের বলা হয় ?

উত্তর সাঁকুলাে বলতে ফ্রান্সের খেটে খাওয়া দরিদ্র মানুষদের বােঝানাে হয়।

31 বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে সুবিধাহীন সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষ (Non Privileged Class) কারা ছিলেন ?

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে তৃতীয় সম্প্রদায়ের মানুষেরা ছিলেন সুবিধাহীন সম্প্রদায়।

I 32_ বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে সুবিধাভােগী সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষ (Privileged Class) কারা ছিলেন ?

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফরাসি সমাজে যাজক ও অভিজাতরা ছিলেন সুবিধাভােগী সম্প্রদায়।

33] বুর্জোয়া বিপ্লব কাকে বলা হয় ?

উত্তর ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ২৭ জুন রাজা ষােড়শ লুই-এর তিন সম্প্রদায়ের একত্রে অধিবেশন এবং মাথাপিছু ভােটের দাবি মেনে নেওয়াকে বুর্জোয়া বিপ্লব’ বলা হয়।

34.কোন দার্শনিক রাজনৈতিক বন্দি হিসেবে বাস্তিল দুর্গে আটক ছিলেন?

উত্তর ভলতেয়ার রাজনৈতিক বন্দি হিসেবে বাস্তিল দুর্গে আটক ছিলেন।

35 দ্য স্পিরিট অফ লজ’ (The Spirit of Laws) গ্রন্থের বচয়িতা কে?

উত্তর। ‘দ্য স্পিরিট অফ লজ’ গ্রন্থের রচয়িতা হলেন মন্তেস্কু।

36দ্য পার্সিয়ান লেটারস' (The Persian Letters) গ্রন্থের রচয়িতা কে?

উত্তর ‘দ্য পার্সিয়ান লেটারস’ গ্রন্থের রচয়িতা হলেন মন্তেস্ক।

37। কাদিদ (Candide) গ্রন্থের রচয়িতা কে ছিলেন?

উত্তর কাদিদ’ গ্রন্থের রচয়িতা ছিলেন ভলতেয়ার।

38লেতর fapoufa' (Letters Philosophiques) গ্রন্থের রচয়িতা কে ছিলেন?

উত্তর। লেতর ফিলজফিক’ গ্রন্থের রচয়িতা ছিলেন ভলতেয়ার।

39_ কোন গ্রন্থকে ফরাসি বিপ্লবের বাইবেল’বলা হয় ?

উত্তর সােশ্যাল কন্ট্রাক্ট (Social Contract) গ্রন্থকে ফরাসি বিপ্লবের বাইবেল’ বলা হয়।

40সামাজিক চুক্তি' (Social Contract) গ্রন্থের রচয়িতা কে?

উত্তর। সামাজিক চুক্তি’ (Social Contract) গ্রন্থের রচয়িতা হলেন রুশাে।

[41রুশাে কে ছিলেন?

উত্তর রুশাে ছিলেন একজন বিখ্যাত ফরাসি দার্শনিক।

42Origin of Inequality' (অসাম্যের সূত্রপাত) গ্রন্থের রচয়িতা কে?

উত্তর Origin of Inequality' (অসাম্যের সূত্রপাত) গ্রন্থের রচয়িতা হলেন রুশাে।

43.কাকে ফরাসি বিপ্লবের জনক বলা হয় ?

উত্তর রুশাে-কে ‘ফরাসি বিপ্লবের জনক’ বলা হয়।

44.“জনগণই হল রাষ্ট্রের সার্বভৌম শক্তির উৎস”- কে বলেছেন?

উত্তর ফরাসি দার্শনিক রুশাে উপরােক্ত উক্তিটি করেছেন।

45 একজন বিশ্বকোশ (Encyclopedia) প্রণেতার নাম লেখাে।

উত্তর একজন বিশ্বকোশ (Encyclopedia) প্রণেতার নাম হল দেনিস দিদেরাে।

50 জাতীয় সভা’ (National Assembly) কী ?

উত্তর ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ১৭ জুন স্টেট জেনারেলের অধিবেশনে তৃতীয় সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিরা নিজেদের সভাকে জাতীয় সভা’ (National Assembly) বলে উল্লেখ করেন। অর্থাৎ জাতীয় সভা হল তৃতীয় সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের নিজস্ব সভা।

নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায়ের ২ নং প্রশ্ন উত্তর

ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক 2 নং প্রশ্ন উত্তর


1কে ফ্রাঙ্গাকে ভ্রান্ত অর্থনীতির জাদুঘর’ বলেছেন? কেন বলেছেন?

উত্তর বিখ্যাত অর্থনীতিবিদ অ্যাডাম স্মিথ ফ্রান্সকে ভ্রান্ত অর্থনীতির জাদুঘর' বলেছেন। ফ্রান্সকে ভ্রান্ত অর্থনীতির জাদুঘর বলা হয় কারণ-

1 ফ্রান্সে প্রচলিত করব্যবস্থা ছিল বৈষম্যমূলক ও দুর্নীতিগ্রস্ত।

2. ফরাসি সমাজের অধিকারভােগী শ্রেণি যাজক ও অভিজাতরা ছিলেন অধিকাংশ জমির মালিক; কিন্তু এজন্য তারা কোনাে কর দিতেন না। অপরদিকে অধিকারহীন শ্রেণির দরিদ্র কৃষকদের সমস্ত কর দিতে হত।


2 ‘রাজনৈতিক কারাগার' (Political Prlson) কাকে বলা হয় এবং কেন? ২

উত্তর ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে ফরাসি বিপ্লবের পূর্বেবাস্তিল দুর্গ রাজনৈতিক কারাগার' হিসেবে পরিচিত ছিল। বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে লেতর দ্য ক্যাশে' নামক গ্রেফতারি পরােয়ানার সাহায্যে রাজকীয় কর্মচারীরা যে-কোনাে ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে বিনা বিচারে বাস্তিল দুর্গে আটক করে রাখত বলে একে রাজনৈতিক কারাগার’ বলা হয়। রাজতন্ত্রবিরােধী মনােভাব প্রকাশকরার অপরাধে দার্শনিক ভলতেয়ার-কেও বাস্তিল দুর্গে আটক করে রাখা হয়।


5 বিপ্লব পূর্ববর্তী ফ্রান্সে কয়টি প্রত্যক্ষ কর ছিল? এগুলি কী কী ?

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফ্রান্সে তিনটি প্রত্যক্ষ কর ছিল।

৪|টেইলি' কী?• AM

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফ্রান্সে প্রচলিত একটি প্রত্যক্ষ কারের নাম

টেইলি। টেইলি হল ভূমিকর বা সম্পত্তিকর। এই কর ফরাসিদের সম্পত্তি অনুসারে ধার্য করা হত। কিন্তু বাস্তবে মধ্যবিত্ত ও দরিদ্র কৃষকদের এই কর দিতে হত।

5.ক্যাপিটেশন' কী ?* R.M

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফ্রান্সে প্রচলিত একটি প্রত্যক্ষ করের নাম ক্যাপিটেশন। ক্যাপিটেশন হল উৎপাদনকর। ফরাসিদের উৎপাদনের উপর এই কর ধার্য করা হত। বাস্তবে যাজক ও অভিজাতরা এই প্রদান থেকে অব্যাহতি পেতেন এবং ফ্রান্সের সাধারণ জনগণকেই তা দিতে হত।


6.ভিংটিয়েমে’ কী ?* 2.

উত্তর বিপ্লব পূর্ববর্তী ফ্রান্সে প্রচলিত একটি প্রত্যক্ষ করের নাম ভিংটিয়েমে বা ভাতিয়াম— স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তির উপর ধার্য আয়কর, যা মূলত কৃষকরা প্রদান করত। মােট আয়ের ৫% আয়কর

হিসেবে দিতে হত। অভিজাতরা এই করের কিছুটা প্রদান করলেও যাজকরা এই করপ্রদান থেকে সম্পূর্ণভাবে মুক্ত ছিলেন। ১৭৪৯ খ্রিস্টাব্দে এই কর ফ্রান্সে চালু হয়।


6.‘টাইথ’ কী ?* ২৭

উত্তর টাইথ হল ফ্রান্সে প্রচলিত ধর্মকর। ফ্রান্সের তৃতীয় সম্প্রদায় এই কর দিত চার্চ বা গির্জাকে। উৎপন্ন ফসলের ১০% ধর্মর্কর বা টাইথ হিসেবে দিতে হত।


7.কর্ভে’ বা করভি’ কী ?* Pণ

উত্তর বিপ্লব পূর্ব ফ্রান্সে বাধ্যতামূলক বা জবরদস্তিমূলক শ্রমদান। অভিহিত হত কর্ভে বা করভি নামে। এই পরােক্ষ করের জন্য কৃষকরা। বিনা পারিশ্রমিকে রাজাকে রাজপথ নির্মাণের জন্য এবং সামন্তপ্রভুকে সপ্তাহের নির্দিষ্ট দিনগুলিতে শ্রমদান করতে বাধ্য হত।


12‘ইনটেনডেন্ট (Intendent) কাদের বলে ?

উত্তর বুরবো শাসনকালে প্রাদেশিক শাসনব্যবস্থার অন্যতম প্রধান স্তম্ভরূপে পরিচিত এক বিশেষ ক্ষমতাশালী রাজস্ব সংগ্রাহক কর্মচারীরা। হল ইনটেনডেন্ট'। তবে স্থানীয় বিচারব্যবস্থা থেকে শুরু করে সাধারণ। প্রশাসন, কৃষি, শিল্প, বাণিজ্য, সৈন্যসংগ্রহ-সহ বিভিন্ন বিষয় তাদের। নিয়ন্ত্রণে ছিল। লেফেভর লিখেছেন, নেকড়েতুল্য এই কর্মচারীদের অত্যাচারে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল।


(14) ফ্রান্সে প্রথম সম্প্রদায়’ নামে কারা পরিচিত ছিলেন? RJ

উত্তর ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে ফরাসি সমাজে যাজকরা প্রথম সম্প্রদায় বা First Estate নামে পরিচিত ছিলেন। ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে যাজকদের সংখ্যা ছিল ১ লক্ষ ২০ হাজার। ফ্রান্সের মােট জনসংখ্যার ১%-এর কম হয়েও যাজকরা সমাজে ও রাষ্ট্রে খুব প্রভাবশালী ছিলেন। তারা ছিলেন আইনের উর্ধ্বে এবং তাদের কোনাে প্রকার কর দিতে হত না। 


16] ফ্রান্সে তৃতীয় সম্প্রদায়’ নামে কারা পরিচিত ছিলেন ?

উত্তর ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সের সমাজে তৃতীয় সম্প্রদায় বা থার্ড এস্টেট বলতে বােঝাত যাজক ও অভিজাত ছাড়া সমাজের সমস্ত সাধারণ প্রজাদের। এই সম্প্রদায়ের মধ্যে ছিলেন বুর্জোয়া বা মধ্যবিত্ত, কৃষক, শ্রমিক, বুদ্ধিজীবী, ব্যবসায়ী, দোকানদার, সাকুলােৎ ইত্যাদি। থার্ড

এস্টেটের জনসংখ্যা ছিল মােট জনসংখ্যার ৯৭%-এরও বেশি। রাষ্ট্রের প্রায় সমস্তকর তাদেরই দিতে হত, কিন্তু রাষ্ট্রের কাছ থেকে তারা কোনাে সুযােগসুবিধা পেত না। সমাজ ও রাষ্ট্রে এরা ছিল অধিকারহীন শ্রেণি।


17 ফরাসি সমাজে বুর্জোয়া’ কাদের বলা হত??

উত্তর ফরাসি সমাজে বুর্জোয়া বলা হত তৃতীয় সম্প্রদায়ভুক্ত মধ্যবিত্তদের। এরা ছিলেন বিদ্যা, বুদ্ধি ও ধনবলে বলীয়ান; কিন্তু বংশকৌলীন্যের অভাবে তারা সমাজ ও রাষ্ট্রে বিশেষ মর্যাদা পেতেন এরা ছিলেন অধিকারহীন শ্রেণি। বুর্জোয়াদের মধ্যেও তিনটি স্তর ছিল— @ উচ্চ বুর্জোয়া, @ মধ্য বুর্জোয়া ও @ নিম্ন বুর্জোয়া।


18. ফরাসি সমাজে 'সাকুলােৎ' কাদের বলা হত ?• P.M

উত্তর ফরাসি সমাজে সাকুলাে বলতে বােঝাত শহরবাসী খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষদের। এর মধ্যে ছিল দিনমজুর, কুলি, মালি,ভিস্তি (জলবাহক), কাঠুরে, চাকর (গৃহভৃত্য) প্রভৃতি। ফরাসি বিপ্লবে সাঁকুলােৎদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল।


19) আসিয়া রেজিম' বলতে কী বােঝায়? ২ R.M

উত্তর অঁসিয়া রেজিম' বা Ancién Regime কথার অর্থ হল ‘প্রাচীন আমল। ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে বুরবো রাজাদের আমলকে ‘আঁসিয়া রেজিম' বলা হয়। এই সময় রাজনৈতিক অবস্থা ছিল স্বৈরাচারী, সামাজিক অবস্থা ছিল বৈষম্যমূলক, অর্থনৈতিক অবস্থা ছিল ত্রুটিপূর্ণ। ফরাসি বিপ্লব এই পুরাতনতন্ত্রের অবসান ঘটিয়েছিল।


20 অভিজাত বিদ্রোহ' কী ?

উত্তর অর্থনৈতিক সংকট দূর করার উদ্দেশ্যে ফরাসি রাজা যােড়শ লুই ১৭৮৮ খ্রিস্টাব্দে দেশের সমস্ত প্রাদেশিক পার্লামেন্ট মুলতুবি করেন এবং সকল সম্প্রদায়ের থেকে কর আদায়ের উদ্যোগ নেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সুবিধাভােগী অভিজাতশ্রেণি রাজার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ শুরু করে। এই ঘটনা অভিজাত বিদ্রোহ বা অভিজাত বিপ্লব’ নামে পরিচিত।


24 মন্তেস্থ কে ছিলেন? মন্তেস্থ রচিত দুটি গ্রন্থের নাম লেখাে।

উত্তর মন্তেস্কু ছিলেন একজন বিশিষ্ট ফরাসি দার্শনিক। তিনি ছিলেন নিয়মতান্ত্রিক রাজতন্ত্রের সমর্থক এবং রাজার ঐশ্বরিক ক্ষমতার ধারণার বিরোধী। ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে তার মতবাদ ফরাসিদের প্রভাবিত করেছিল। মন্তেস্কু রচিত দুটি বিখ্যাত গ্রন্থ হল-1 দ্য স্পিরিট অফ লজ এবং 2ি] দ্য পার্সিয়ান লেটারস।


25) ভলতেয়ার কে ছিলেন? ভলতেয়ার রচিত দুটি গ্রন্থের নাম লেখাে।

উত্তর ভলতেয়ার ছিলেন একজন বিখ্যাত ফরাসি সাহিত্যিক ও দার্শনিক। তার রচিত দুটি গ্রন্থের নাম হল- 1 কাদিদ এবং 2 | লেতর ফিলজফিক।


38 | রুশে বিখ্যাত কেন? তাঁর রচিত দুটি গ্রন্থের নাম লেখাে।

উত্তর বুশো ছিলেন ফরাসি বিপ্লবের প্রাক্কালে সর্বশ্রেষ্ঠ দার্শনিক। তার রচিত দুটি গ্রন্থের নাম হল-

সসাশ্যাল কন্ট্রাক্ট (সামাজিক চুক্তি) এবং 2] অরিজিন অফ ইনইকুয়ালিটি (অসাম্যের উৎস)।


2] ফরাসি বিপ্লবের জনক’ কাকে বলা হয়? কোন্ গ্রন্থকে ফরাসি বিপ্লবের বাইবেল' বলা হয় ?

উত্তর ফরাসি বিপ্লবের জনক : ফরাসি দার্শনিক রুশাে-কে ফরাসি বিপ্লবের জনক বলা হয়।

ও ফরাসি বিপ্লবের বাইবেল ; ফরাসি দার্শনিক রুশাে রচিত ‘সােশ্যাল কন্ট্রাক্ট’ গ্রন্থটিকে ফরাসি বিপ্লবের বাইবেল’ বলা হয়।


29, ফরাসি বিপ্লবে দার্শনিকদের ভূমিকা কী ছিল?

উত্তর মন্তে, ভলতেয়ার, রুশাে প্রমুখ ফরাসি দার্শনিকগণ প্রাক্-বিপ্লব ফ্রান্সের সমাজ, অর্থনীতি ও রাষ্ট্রনীতির প্রকৃত স্বরূপ জনগণের সামনে উন্মােচন করেছিলেন। এর ফলে জনগণের মধ্যে বিপ্লবমনস্কতা তৈরি হয়েছিল।


31 ফিজিওক্যাটা' কাদের বলা হয় ? ?

উত্তর। ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে এক শ্রেণির অর্থনীতিবিদের আবির্ভাব হয়, যারা অবাধ বাণিজ্য ও বেসরকারি শিল্প প্রতিষ্ঠার পক্ষপাত, ছিলেন। তাদের ফিজিওক্র্যাটস বলা হয়। এই মতবাদের প্রবক্তা হলে। কুয়েসনে, অ্যাডাম স্মিথ প্রমুখ। এই অর্থনীতিবিদরা ব্যাবসাবাণিজ্যে, ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে রাষ্ট্রীয় হস্তক্ষেপ ।নিয়ন্ত্রণের বিরােধিতা করেন।


33 স্টেট জেনারেল কী ? ফ্রান্সের রাজা ষােড়শ লুই কেন

স্টেট জেনারেলের অধিবেশন আহ্বান করেছিলেন?

উত্তর স্টেট জেনারেল : স্টেট জেনারেল হল ফ্রান্সের জাতীয় সভা।

স্টেট জেনারেলের অধিবেশন আহ্বানের কারণ : রাজা যােড়শ লুই স্টেটস জেনারেলের অধিবেশন ডেকে জনগণের উপর বাড়তি কর ধার্য করতে চেয়েছিলেন। ফ্রান্সের তৎকালীন অর্থসংকট থেকে মুক্তিলাভের জন্য তিনি স্টেট জেনারেলের অধিবেশন আহ্বান করেছিলেন।


(36) টেনিস কোর্টের পথ’ বলতে কী বােঝায় ?* 1.40

উত্তর। ১৭৮৯ খ্রিষ্টাব্দের ২০ জুন তৃতীয় সপ্তাদান্তের প্রতিনিধিরা স্টেট জেনারেলের অধিবেশনে তাদের জন্য নির্দিষ্ট সভাকক্ষে প্রবেশ করতে গিয়ে দেখেন সেটি তালাবন্ধ আছে। তখন তারা আবে সিয়েস ও মিরাববার নেতৃত্বে পাশের টেনিস খেলার মাঠে সমবেত হন। এপানে তারা শপথগ্রহণ করেন যে, যতদিন না ফ্রান্সের জন্য একটি নতুন সংবিধান রচনা হচ্ছে ততদিন তারা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবেন। একে ‘টেনিস কোর্টের শপথ’ বলা হয়।


37 লেতর-দ্য-ক্যাশে’ (Lettres de Cachatt) কী ?*91

উত্তর ‘লেতর-দ্য-ক্যাশে’ হল ফ্রান্সে প্রচলিত একপ্রকার রাজকীয়৷ গ্রেফতারি পরােয়ানা। এই পরােয়ানার ভিত্তিতে রাজকর্মচারীর যে-কোনাে ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে বিনা বিচারে দীর্ঘদিন আটক করে রাখতে পারতেন।

38 বাস্তিল কী? কবে, কীভাবে এর পতন ঘটেছিল?

উত্তর বাস্তিল : বাস্তিল হল ফ্রান্সের একটি কুখ্যাত দুর্গ।

* বাস্তিলের পতন : ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ১৪ জুলাই বাস্তিল দুর্গে পতন হয় ফরাসি জনগণের আক্রমণে।


40 বাস্তিল দুর্গের পতনের গুরুত্ব কী? 2.1

উত্তর বাস্তিল দুর্গ ছিল বুরবো রাজতন্ত্রের স্বৈরচারিতার প্রতীক বাস্তিল দুর্গের পতনের প্রধান গুরুত্ব ছিল-

1। ফ্রান্সে বুরবো রাজাদের স্বৈরশাসনের অবসান ঘটে।

2। বাস্তিল দুর্গে বন্দি নিরপরাধ ফরাসি জনসাধারণ মুক্তি পায়।

3। বাস্তিল দুর্গের পতনের মাধ্যমে ফ্রান্সে বিপ্লবের জয়যাত্রা সূচিত


41| ‘প্যারিস কমিউন’ কী?*

উত্তর ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ১৪ জুলাই বাস্তিল দুর্গের পতনের পর ফ্রান্সের বিপ্লবী জনগণ প্যারিসের পৌরশাসনভার নিজেদের হাতে তুলে নেয়। নিজেদের মধ্যে থেকে প্রতিনিধি নির্বাচন করে যে অস্থায়ী পৌরপরিষদ গঠন করে, তাকেই ‘প্যারিস কমিউন' বলা হয়।


42 মহা আতঙ্ক' (Great Four) কী ?

উত্তর প্যারিস শহরে গণ অভুথান এবং বাস্তিল দুর্গের পতন ফ্রান্সের গ্রামগুলিতে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি করে। এই সময়ে গ্রামের কৃর্যকদের মধ্যে গুজব ছড়ায় যে, তাদের শায়েস্তা করতে অভিজাতদের সেনাবাহিনী ও গুন্ডারা আসছে। এই মিথ্যা রটনাই ফ্রান্সের ইতিহাসে ‘মহা আতঙ্ক (Great Fear) নামে পরিচিত।

46 মানুষ ও নাগরিকের অধিকারের ঘােষণা’ বলতে কী বোঝায়?*

উত্তর ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ২৬ আগস্ট ফ্রান্সের সংবিধান সভা একটি ঘােষণাপত্রে মানুষের অধিকারের কথা ঘােষণা করে। এটি মানুষ ও নাগরিকের অধিকারের ঘােষণা নামে পরিচিত। এতে বলা হয়-

1 | স্বাধীনতা মানুষের জন্মগত অধিকার।

2। আইনের চোখে সকলেই সমান।


51 সংবিধান সভার দুটি অর্থনৈতিক সংস্কার সম্পর্ক

উত্তর সংবিধান সভার দুটি অর্থনৈতিক সংস্কার হল— @ ফ্রান্সে গর্জার সমস্ত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয় এবং অ্যাসাইনেট' নামক কাগজের নােট চালু করা হয়। @ সকল প্রকার পরােক্ষ কর তুলে দেওয়া হয় 


53 অ্যাসাইনেট কী?

উত্তর অ্যাসাইনেট হল ব্রাসি সংবিধান সভা প্রবর্তিত একপ্রকার কাগজের নােট। সংবিধান সভা ফ্রান্সের অর্থনৈতিক সমস্যা সমাধানের জন্য ফ্রান্সের গির্জার সব ভূসম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে এবং তা আমানত

রেখে তার পরিবর্তে যে কাগজের নােট চালু করে, তা অ্যাসাইনেট নামে পরিচিত।


55 ব্রান্সউইক ঘােষণা কী?*

উত্তর প্রাশিয়ার রাজা দ্বিতীয় ফ্রেডরিক উইলিয়ম ষােড়শ লুইকে সাহায্য করতে বদ্ধপরিকর ছিলেন। ফ্রান্স যখন অগ্নিগর্ভ তখন রাজার নির্দেশে অস্ট্রিয়া ও প্রাশিয়ার যৌথ সেনাধ্যক্ষ ডিউক-অফ ব্রান্সউইক এক ঘােষণাপত্রে জানান, ফরাসি রাজপরিবারের নিরাপত্তা কোনােভাবে বিঘ্নিত হলে তিনি প্যারিস ধ্বংস করে দেবেন। ফরাসি জাতির প্রতি চরম অপমানজনক এই ঘােষণাই ব্রান্সউইক ঘােষণা নামে পরিচিত।


58 কোন্ ঘটনা সেপ্টেম্বর হত্যাকাণ্ড’ নামে পরিচিত ?*

উত্তর১৭৯২ খ্রিস্টাব্দে ফ্রান্সে বিপ্লবী-কমিউন কয়েক হাজার  রাজতন্ত্রের সমর্থক ব্যক্তিকে বন্দি করে এবং কারাগারে অনেক মানুষকেহত্যা করে। এই ঘটনা সেপ্টেম্বর হত্যাকাণ্ড’ নামে পরিচিত। এই ঘটনা। রাজতন্ত্রের অবসানকে সুনিশ্চিত করে।


67| জেকোবিন' কাদের বলা হত?

অথবা, জেকোবিন দল বলতে কী বােঝো?

উত্তর জেকোবিন হল ফরাসি আইনসভার একটি রাজনৈতিকদল। ফ্রান্সের জেকোবিন দলের সদস্যদেরই ‘জেকোবিন' বলা হত।

জেকোবিনরা ছিলেন প্রজাতন্ত্রের সমর্থক ও উগ্র বামপন্থী। জেকোবিনরা কয়েক বছর ফ্রান্সের শাসন পরিচালনা করেছিলেন। জেকোবিনদের অন্যতম প্রধান নেতা ছিলেন রােবসপিয়র।


62| জিরভিন’ কারা ছিলেন ?

উত্তর ফ্রান্সের আইনসভার একটি গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক দল হল জিরন্ডিন দল। ফ্রান্সের জিরন্ড প্রদেশ থেকে এর অধিকাংশ সদস্যরা এসেছিলেন বলে এই দল জিরভিন দল নামে পরিচিত ছিল। জিরন্ড প্রদেশ। থেকে আগত দলের সদস্যরাই ‘জিরন্ডিন’ নামে পরিচিত। জিরন্ডিনরা বামপন্থায় বিশ্বাসী হলেও জেকোবিনদের মতাে উগ্র ছিলেন না।


65 জাতীয় মহাসভা বা ন্যাশনাল কনভেনশন’কী ?*

অথবা, ন্যাশনাল কনভেনশন কেন আহ্বান করা হয়েছিল ?

উত্তর ১৭৯১ খ্রিস্টাব্দের ২০ জুন ষােড়শ লুই বন্দি হলে ফ্রান্সে নতুন সংবিধানের প্রয়ােজন হয়। এই নতুন সংবিধান রচনার জন্য গণভােটের ভিত্তিতে যে পরিষদ গঠিত হয়, তা জাতীয় কনভেনশন নামে পরিচিত। জাতীয় কনভেনশন ১৭৯২ খ্রিস্টাব্দের সেপ্টেম্বর থেকে ১৭৯৫ খ্রিস্টাব্দের নভেম্বর মাস পর্যন্ত বজায় ছিল।


68 সন্ত্রাসের রাজত্ব' বলতে কী বােঝায়?

উত্তর রাজা যযাড়শ লুইয়ের প্রাণদণ্ডের ফলে ফ্রান্সে অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক ক্ষেত্রে এক ভয়ংকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। দেশের অভ্যন্তরে খাদ্যাভাব ও অর্থাভাবে চরম সংকট তৈরি হয় এবং জনগণ। প্রজাতান্ত্রিক সরকারের বিরােধিতা করে। অপরদিকে ইউরােপের দেশগুলি ফ্রান্সকে আক্রমণ করতে সচেষ্ট হয়। এই অবস্থায় জেকোবিন দল ফ্রান্সের জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার জন্য ভীতি প্রদর্শনের মাধ্যমে যে শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করে, তাকে সন্ত্রাসের শাসন’বলা হয়। সন্ত্রাসের শাসনের প্রধান পরিচালক ছিলেন রােবসপিয়র।


72 সন্দেহের আইন’ বলতে কী বােঝাে ?*

উত্তর ফ্রান্সে সন্ত্রাসের শাসন চলাকালীন এক বিশেষ ধরনের আইন প্রচলিত হয়। এই আইন অনুযায়ী কোনাে ব্যক্তিকে কেবলমাত্র সন্দেহের ভিত্তিতে গ্রেফতার এবং বিনা বিচারেশাস্তি প্রদান করা যেত। এই আইনই সন্দেহের আইন’ নামে পরিচিত।


73 রােবসপিয়র কে ছিলেন?

উত্তর রােবসপিয়র ছিলেন ফ্রান্সে জেকোবিন দলের নেতা এবং সন্ত্রাসের রাজত্বের প্রধান পরিচালক। তিনি ফ্রান্সে মহাসন্ত্রাস’ শুরু করেছিলেন। ১৭৯৪ খ্রিস্টাব্দের ২৮ জুলাই গিলােটিনে তাকে হত্যা করার সঙ্গে সঙ্গে ফ্রান্সে সন্ত্রাসের শাসনের অবসান হয়।


74 লাল সন্ত্রাস’ (Red Terror) বলতে কী বােঝাে ?*

উত্তর জেকোবিন দলের পরিচালনায় এবং রােবসপিয়রের নেতৃত্বে ১৭৯৩ খ্রিস্টাব্দের ২ জুন থেকে ১৭৯৪ খ্রিস্টাব্দের ২৭ জুলাই পর্যন্ত ফ্রান্সে যে নৃশংস সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করা হয়েছিল, তাকেলাল সন্ত্রাস’ বলা হত। ক্লাঙ্গে সন্ত্রাসের প্রয়ােজন ফুরিয়ে গেলেও ব্রোবসপিয়র সন্ত্রাসের রাজত্ব চালিয়ে যান।


75 তে সুপ্রাস (White Terror) বলতে কী বােঝো?

উত্তর ফ্রান্সের বেকার, ভবঘুরে মানুষ রােবসপিয়রের ভয়াবহ লাল সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জোকোবিনদের হত্যা করতে শুরু করে। এই ঘটনা ‘শ্বেত সন্ত্রাস' নামে পরিচিত।


76 রােবসপিয়রের ক্ষমতা থেকে অপসারণকে ‘থার্মিভােরীয় প্রতিক্রিয়া বলা হয় কেন?

উত্তর ফ্রান্সের নতুন বিপ্লবী বর্ষপঞ্জী অনুসারে ১৭৯৪ খ্রিস্টাব্দের ৯ থার্মিভাের (২৭ সেপ্টেম্বর) রােবসপিয়র ক্ষমতাচ্যুত হয়েছিলেন থার্মিভাের মাসে এই ঘটনাটি ঘটে বলে একে ‘থামিডােরীয় প্রতিক্রিয়া বলা হয়।


78) গিলােটিন’ কী? কে এটি আবিষ্কার করেন? R.

উত্তর গিলােটিন হল ফ্রান্সের সন্ত্রাসের শাসনে ব্যবহৃত শিরচ্ছেদ করার একটি যন্ত্র গিলােটিনের আবিষ্কারক হলেন ড. গিলােটিন।


80 ফরাসি বিপ্লবের কটি আদর্শ ও কী কী?

অথবা, ফরাসি বিপ্লবের মূল আদর্শ কী?

উত্তর ফরাসি বিপ্লবের তিনটি মূল আদর্শ ছিল। এগুলি হল—

মৈত্রী ও স্বাধীনতা অর্থাৎ জাতীয়তাবাদ, গণতন্ত্রবাদ এবং ব্যক্তিস্বাধীনতা।



 ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক 4 নম্বরের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর

নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায়ের 4 নং প্রশ্ন উত্তর

ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক 4 নং প্রশ্ন উত্তর

1.ফ্রান্সকে ভ্রান্ত অর্থনীতির জাদুঘর বলা হয় কেন ?*

 (Museum of Economic Errors) 

উত্তর ফ্রান্সের আর্থিক অবস্থা ফরাসি বিপ্লবের অন্যতম প্রধান কারণ ছিল। ফ্রান্সের রাজস্বব্যবস্থা ছিল ত্রুটিপূর্ণ। তা ছাড়া সরকার অমিতব্যয়িতা, বিলাসিতা, ব্যয়সংকোচে অনিচ্ছা, জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধি।

ফ্রান্সের পরিস্থিতিকে ভয়ংকর করে তুলেছিল। এইসব কারণে বিশ্ব অর্থনীতিবিদ অ্যাডাম স্মিথ (Adam Smith) তৎকালীন ফ্রান্সকে ভ্রান্ত। অর্থনীতির জাদুঘর’ (Museum of Economic Errors) বলেছেন। ত্রুটিপূর্ণ করব্যবস্থা : i.ফ্রান্সে কর আদায়ের ক্ষেত্রে কোনাে ন্যায়সংগত নীতি ছিল না। অভিজাত ও যাজকরা ছিলেন ফ্রান্সের বেশিরভাগ জমির মালিক। অথচ তারা কর দিতেন সরকারের আয়ের মাত্র ৪%। আর মােট রাজস্বের ৯৬% দিতে হত দরিদ্র কৃষকদের।

ii.সরকারের বাইসাৰি অন্যাফ্রান্সের রাজাদের বেহিসাবি অর্থব্যয়ের ফলে ফ্রান্সের অবথা শােচনীয় হয়ে পড়েছিল।

iii.যুণনীতির অযৌক্তিকতা। চতুর্দশ লুই ও পদশ লুইয়ের 'আমল বিভিন্ন যুদ্ধে যােগদানের ফলে ফ্রান্সের প্রচুর অর্থব্যয় হয়েছিল, যা ফরাসি অর্থনীতিকে দুর্বল করে দেয়। বাজকোশে সংকট । উপরােক্ত কারণে বিপ্লব-পূর্ব ফ্রান্সের রাজকোশে সংকট দেখা যায়। ষােড়শ লুইয়ের সময়ে তুর্গো, নেকার প্রমুখ অর্থমন্ত্রী অভিজাতদের বিরােধিতায় আর্থিক সমস্যা সমাধানের কাজটি সঠিকভাবে করতে না পারায় রাজকোশ প্রায় শূন্য হয়ে পড়ে।

iv। অর্থনৈতিক সংকট ; জনসংখ্যা বৃদ্ধি, মুদ্রাস্ফীতি ইত্যাদির ফলে।

প্রাক্-বিপ্লব পর্বে ফ্রান্সের অর্থনৈতিক সংকট তীব্র আকার ধারণ করে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের ফলে শস্যহানি ঘটলে এই সংকট আরও প্রবল হয় ফ্রান্সের এই অর্থনৈতিক বিপর্যয় কালক্রমে ফরাসি বিপ্লব সংগঠনে ইন্ধন জুগিয়েছিল।


2.ফ্রান্সের করব্যবস্থা বৈষম্যমূলক ছিল কেন? 

উত্তর 

বৈষম্যমূলক করব্যবস্থা : ফ্রান্সের করব্যবস্থা বৈষম্যমূলক ছিল কারণ— ফরাসি রাজাদের সুনির্দিষ্ট কোনাে রাজস্বনীতি ছিল না। বাজেটও তৈরি হত না। তাই রাষ্ট্রীয় ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা দেখা দিয়েছিল। ফ্রান্সে প্রত্যক্ষ করের বােঝা দরিদ্র মানুষকেই বহন করতে হত। যাজক ও অভিজাতরা কোনাে প্রকার কর দিতেন না। ফলত করভার সকলের উপর বা সব অঞ্চলের উপর সমান ছিল না। কর আদায়ের ব্যবস্থাও ছিল ত্রুটিপূর্ণ। 

 কর প্রদানকারী : ফ্রান্সে আদায় করা মােট করের ৯৬% কর দিতে হত তৃতীয় সম্প্রদায়ের সাধারণ মানুষকে। অপরদিকে মাত্র ৪%কর দিত প্রথম ও দ্বিতীয় সম্প্রদায়।

কর আদায় ব্যবস্থা : ফ্রান্সে কর আদায়ের ব্যবস্থাও ছিল ত্রুটিপূর্ণ। সরকার এককালীন কর আদায়ের জন্য কিছু রাজকর্মচারী (ফারমিয়ের nজেনারেল) ও অভিজাতদের কর আদায়ের দায়িত্ব দিত। এই কর

আদায়কারীরা প্রজাদের কাছ থেকে নির্দিষ্ট করের অতিরিক্ত কর আদায় করে নিত। বাড়তি কর আদায়ের জন্য তারা প্রজাদের উপর অকথ্য অত্যাচারও করত।

বাণিজ্যশুল্ক আদায়কারী শুল্কবিভাগের কর্মচারীরা নানাভাবে সরকারের পাওনা আত্মসাৎ করত এবং বণিকদের উপর অত্যাচার চালাত।এইসব কারণে বিখ্যাত অর্থনীতিবিদ অ্যাডাম স্মিথ তৎকালীন ফ্রান্সকে ভ্রান্ত অর্থনীতির জাদুঘর’(Museum of Economic Errors) বলেও অভিহিত করেছিলেন।


3.| টীকা লেখাে বুর্জোয়া। (liotir Jaalala)

বুর্জোয়া বা বুর্জোয়াসি (Bourgao|s|8) কথার অর্থ হল মধ্যবিত্ত শ্রেণি। অষ্টাদশ শতকের শেষদিকে মেগা বুর্জোয়াদের উদ্ভব সম্পর্কে বলেন যে, গ্রামের উদ্যমী ভাগ্যবান কৃষককুল শহরে গিয়ে

শ্রমিক, কারিগর ও শিল্পদ্রব্য নির্মাতা হিসেবে বিত্তশালী হয়ে বুর্জোয় নামে পরিচিত হয়।

শ্রেণিবিভাগ : বুর্জোয়া শ্রেণি তিন ভাগে বিভক্ত— ) উচ্চ বুর্জোয়া, (2) মধ্য বুর্জোয়া ও ) নিল বুর্জোয়।

1. উচ্চ বুর্জোয়া ; ধনবান এই শ্রেণির মধ্যে ছিল পুঁজিপতি, ব্যাংকার, ঠিকাদার, পরোক্ষ কর আদায়কারী, বড়ো ব্যবসায়ী প্রমুখ।

2। মধ্য বুর্জোয়া : বুর্জোয়া শ্রেণির দ্বিতীয় স্তরে ছিল মধ্য বুর্জোয়া বা পেটি বুর্জোয়া। এদের মধ্যে ছিল মূলত বুদ্ধিজীবী ও পেশাজীবী। মানুষ। যেমন--- শিক্ষক, অধ্যাপক, ডাক্তার, লেখক, সাংবাদিক, দার্শনিক, আইনজীবী, শিল্পী প্রমুখ।

3। নিম্ন বুর্জোয়া : বুর্জোয়া শ্রেণির তৃতীয় স্তরে ছিল নিম্ন বুর্জোয়। এদের মধ্যে ছিল দোকানদার, কারিগর, শ্রমিক, ছােটো ব্যাবসাদার। বুর্জোয়া শ্রেণি বিদ্যা, বুদ্ধি ও ধনবলে অভিজাতদের চেয়ে বলীয়ান

ছিল, কিন্তু বংশকৌলীন্যের অভাবে সমাজে তাদের মর্যাদা ছিল কম। এই বুর্জোয়া শ্রেণি ফরাসি বিপ্লবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল।


4. সাঁকুলাে (Sans-culottes) বলতে কী বােঝায়?

সাঁকুলােৎ (Sans-culottes) বলতে বােঝায় শহরের নীচুতলার দরিদ্র মানুষদের। এর আভিধানিক অর্থ হল যারা অন্তর্বাস পরে না অর্থাৎ ব্রিচেস বা কুলােৎ ছাড়া ট্রাউজার পরে যারা। এদের অধিকাংশই ছিল নিরক্ষর ও খেটে খাওয়া মানুষ। এই সম্প্রদায়ের মধ্যে ছিল কারখানার শ্রমিক, মজুর, কারিগর, মুটে, মালি, চাকর, রাজমিস্ত্রি, কাঠুরে, জেলে, জলবাহক প্রমুখ।

সাকুলােৎদের জনসংখ্যা : ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে প্যারিস শহরের অধিকাংশ মানুষ ছিল সাঁকুলােৎ সম্প্রদায়ভুক্ত।

সাঁকুলাে শ্রেণির বৈশিষ্ট্য :

i.এরা শহরের নােংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস করত।

ii. এরা গা-গতরে কাজ করে পেট চালাত এবং কাজ না থাকলে ভিক্ষাও করত।

iii. এদের মধ্যে অনেকে অসামাজিক কাজেও যুক্ত থাকত ও নানাভাবে গণ্ডগােল করত।

iv.শহরের ধনী মানুষরা এদের ঘৃণা করত।

v.স্বার্থান্বেষী রাজনীতির লােকেরা এদের নানাভাবে ব্যবহার করত। সাকুলােৎ তবে বলা যায়, সাঁকুলােত্রই ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ১৪ জুলাই বাস্তিল দুর্গের পতন থেকে শুরু করে নানাভাবে ফরাসি বিপ্লবকে এগিয়ে

নিয়ে গিয়েছিল।


4.টীকা লেখাে : অভিজাত বিদ্রোহ।

অথবা, অভিজাতরা কেন বিদ্রোহ করেছিল?

উত্তর ষােড়শ লুই ১৭৭৪ খ্রিস্টাব্দে রাজা হওয়ার পর লক্ষ করেন যে, ফ্রান্সের রাজকোশ একেবারে শূন্য হয়ে পড়েছে। তিনি তুর্গো, নেকার, ক্যালােন, ব্রিয়া প্রমুখ অর্থমন্ত্রী নিয়ােগ করে এই আর্থিক সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করলে অভিজাতরা রাজার বিরােধিতা করেন।


প্রেক্ষাপট : অভিজাতদের বিরােধিতার ফলে রাজা বাধ্য হয়ে তাদের হাত থেকে আইন এবং কর সংক্রান্ত অধিকার কেড়ে নেন। এর ফলে ফ্রান্সের নানা স্থানে বিদ্রোহ দেখা দেয়।

i.অভিজাতরা অর্থমন্ত্রী ব্রিয়ার কর আদায় সংক্রান্ত কয়েকটি প্রস্তাব মেনে নিলেও স্ট্যাম্পকর ও ভূমিকরের প্রস্তাব বাতিল করে দেন। তারা দাবি করেন যে, একমাত্র স্টেট জেনারেলের কর আরােপের অধিকার আছে।

ii.ষােড়শ লুই পার্লামেন্টের কয়েকজন সদস্যের আচরণে উত্যক্ত হয়ে নিজের ভাই ডিউক অফ অর্লিয়েন্স-সহ তিনজন সদস্যকে নির্বাসিত করেন। এতে পার্লামেন্ট ক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠে এবং অভিজাতরা রাজার বিরুদ্ধে কয়েকটি আইন পাস করে ইচ্ছামতাে নাগরিকদের গ্রেফতার, বিচারকদের অপসারণ প্রভৃতি বিষয়ে রাজার ক্ষমতা কেড়ে নেয়।

iii.পার্লামেন্টের আইনে ক্ষু বন্ধ হয়ে রাজা সমস্ত প্রদেশের পার্লামেন্টগুলি মুলতুবি করেন এবং ৫৭টি নতুন বিচারালয় স্থাপন করে নিজের প্রস্তাবিত সংস্কারগুলিকে আইনে পরিণত করেন।


বিদ্রোহের সূচনা : রাজা পার্লামেন্ট মুলতুবি করলে তার বিরুদ্ধে অভিজাতরা বিদ্রোহ শুরু করে দেন। রাজার বিরুদ্ধে অভিজাতদের বিদ্রোহে শীঘ্রই যাজক ও বুর্জোয়ারাও শামিল হন। ফলে অভিজাত বিদ্রোহ গণবিদ্রোহের আকার ধারণ করে। পার্লামেন্ট ও প্রাদেশিক সভা এই বিদ্রোহকে সমর্থন জানায়। এই অভিজাত বিদ্রোহ থেকেই ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ফরাসি বিপ্লবের সূচনা হয়।


গরত্ব : বুরবোঁ রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে অভিজাতদের বিদ্রোহ ছিল অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ একটি ঘটনা। রাজা শেষ পর্যন্ত বিদ্রোহীদের কাছে

i.এই অভ্যুত্থানে সুবিধাভােগী শ্রেণি রাজার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়। বুর্জোয়াদের সমর্থনে অভিজাত বিদ্রোহ রাজতন্ত্রবিরােধী আন্দোলনে পরিণত হয়।

ii.অভিজাত বিদ্রোহের চাপে রাজা স্টেটস জেনারেলের অধিবেশন ডাকতে বাধ্য হন। ফলে রাজার স্বৈরাচারী রাজতন্ত্রের মর্যাদায় আঘাত লাগে।

iii.রাজার ঐশ্বরিক ক্ষমতা ও স্বৈরতন্ত্রের ভিত্তি দুর্বল হয়ে পড়ে। ঐতিহাসিক লেফেভর (Lefebvre) অভিজাত বিদ্রোহকে অভিজাত বিপ্লব’ বলেছেন। এ কথা সত্য যে, বিদ্রোহের প্রথম পর্যায়ে অভিজাতরা নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। কিন্তু তাদের হাত থেকে বিদ্রোহের নেতৃত্ব প্রথমে বুর্জোয়াদের হাতে এবং পরে সাকুলােৎ ও কৃষক শ্রেণির হাতে চলে যায়।


5.টীকা লেখাে : টেনিস কোর্টের শপথ (Tennis court Oath)। অথবা, টেনিস কোর্ট শপথ’বলতে কী বােঝাে?

উত্তর ফরাসি বিপ্লবের সূচনাপর্বের অন্যতম প্রধান ঘটনা ছিল টেনিস কোর্টের শপথ। ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ২০ জুন ফ্রান্সের জাতীয় সভার (স্টেট জেনারেল) প্রতিনিধিরা টেনিস কোর্টের মাঠে সমবেত হয়ে যে শপথগ্রহণ করেছিলেন, তা টেনিস কোর্টের শপথ’ নামে পরিচিত।

পটভূমি : ফরাসি সম্রাট ষােড়শ লুই ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে জাতীয় কুয়েসনে (Quesnay) ছিলেন ফরাসি সম্রাট পঞ্চদশ লুই (Louis XV)-এর চিকিৎসক। তিনি ১৭৫৮ খ্রিস্টাব্দে প্রকাশিত ট্যাবলাে ইকনমিক' (Tableau économique) গ্রন্থে তার অর্থনৈতিক চিন্তাধারা প্রকাশ করেন।

রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণমূক্ত অবাধ বাণিজ্য নীতির অপর নাম লেসে ফেয়ার (Laissez- Faire)। এই কথাটি জনপ্রিয় করে তােলেন গুর্নে (Gournay)। সভার অধিবেশন আহ্বান করেন। এই অধিবেশনে তৃতীয় শ্রেণির প্রতিনিধিরা শ্রেণিভিত্তিক ভােটদানের পরিবর্তে মাথাপিছু ভােটদানেরঅধিকার দাবি করেন। সম্রাট ষােড়শ   তৃতীয় শ্রেণির দাবি নাকচ করে দেন। তখন তৃতীয় শ্রেণির প্রতিনিধিরা মিরাব্যুৎ, লাফায়েৎ ও আবে সিয়েসের নেতৃত্বে পাশের টেনিস কোর্টের মাঠে সমবেত হয়ে শপথগ্রহণ করেন।


শপথ : তৃতীয় শ্রেণির প্রতিনিধিরা টেনিস কোর্টের মাঠে শপথ নিয়েছিলেন যে- ফ্রান্সের জন্য একটি নতুন সংবিধান রচনা করা পর্যন্ত তারা এই স্থান ত্যাগ করবে না। তাদের দাবি ছিল—

তৃতীয় শ্রেণির সদস্যদের মাথাপিছু ভােটের দাবি মেনে নিতে হবে তাদের একটি নতুন সংবিধান রচনার অধিকার দিতে হবে।


টেনিস কোর্টের শপথ

ফলাফল : টেনিস কোর্টের শপথের ফলে প্রথম দুই এস্টেট গুরুত্বহীন হয়ে পড়ে এবং ফরাসি জাতির নেতৃত্ব গ্রহণ করে তৃতীয় এস্টেটের প্রতিনিধিরা। তৃতীয় শ্রেণির সদস্যদের মাথাপিছু ভােট ও নতুন সংবিধান রচনার দাবি সম্রাট ষােড়শ লুই শেষ পর্যন্ত মেনে নিতে বাধ্য হন এবং ২৭ জুন পুনরায় জাতীয় সভার অধিবেশন আহ্বান করেন। ফলে ফরাসি বিপ্লবের পথ সুগম হয়। অনেক ঐতিহাসিক টেনিস কোর্টের শপথকে ফরাসি বিপ্লবের সূচনাপর্ব বলে অভিহিত করেছেন।


5.ফরাসি জনতা কেন বাস্তিল দুর্গ আক্রমণ করে? অথবা, টিকা লেখো : বাস্তিল দুর্গের পতন (Fall of Bastille)

উত্তর বাস্তিল দুর্গ ছিল ফরাসি রাজতন্ত্রের অত্যাচারের অন্যতম কেন্দ্র এই দুর্গে রাজতন্ত্রের বিরােধী ব্যক্তিদের বন্দি করে রাখা হত ও অত্যাচার করা হত। তাই জনগণের কাছে বাস্তিল দুর্গ ছিল ফরাসি রাজতন্ত্রের অত্যাচারের প্রতীক। ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে ফ্রান্সের বিদ্রোহী জনগণ বাস্তিল দুর্গ আক্রমণ করে ধ্বংস করেছিল।

বাস্তিল দুর্গের পতনের কারণ : খাদ্যদ্রব্যের মূল্য হ্রাস ও মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে সােচ্চার হয়ে ওঠা জনতাকে ছত্রভঙ্গ করার জন্য প্যারিস নগর কর্তৃপক্ষ তাদের উপর আক্রমণ চালায়। সেইসঙ্গে সম্রাট যােড় লুই-এ -এর জনপ্রিয় অর্থমন্ত্রী নেকার (Necker)-কে পদচ্যুত করার সংবাদে। জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। ফলে শহরের বিভিন্ন স্থানে সেনাবাহিনীর সঙ্গে জনতার সংঘর্ষ বাধে। উন্মত্ত জনতা অধিক আগ্নেয়াস্ত্র সংগ্রহের জন্য স্বৈরাচারী রাজতন্ত্রের প্রতীক' বাস্তিল দুর্গ আক্রমণ করে।


বাস্তিল দুর্গ আক্রমণ ও ধবংস : প্যারিস শহরের উত্তেজিত জনতা ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের ১৪ জুলাই কুখ্যাত বাস্তিল দুর্গ দখল করে ধ্বংস করে দেয়। সমস্ত বন্দিরাও মুক্তি পায়।


ফলাফল : বাস্তিল দুর্গের পতনের ফলে রাজা যােড়শ লুই-এর স্বৈরশাসনের অবসান হয়।

2। রাজা জাতীয় পরিষদকে স্বীকৃতি দেন এবং এই সময় থেকে রাষ্ট্রের প্রকৃত ক্ষমতা আইনসভার হাতে চলে যায়।

[3] ফ্রান্সের প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণের সূচনা হয় এবং অভিজাততন্ত্রের পতন আসন্ন হয়ে ওঠে। প্রায় ২০ হাজার অভিজাত দেশত্যাগী হয়।

[4] বাস্তিলের পতন কৃষক বিদ্রোহে ইন্ধন জোগায়, সামন্ততন্ত্রের পতনের পথ প্রস্তুত এবং পৌরবিপ্লবেরও সূচনা করে। ঐতিহাসিক গুডউইন (Goodwin) বলেন- “বাস্তিলের পতনের মতাে বিপ্লবের আর কোনাে ঘটনার এত বহুমুখী ও সুদূরপ্রসারী ফলাফল ছিল না।


6.ফিজিওক্র্যাট (Physiocrats) মতবাদের প্রবক্তা কারা ?এই মতবাদের মূল কথা কী

উওর অষ্টাদশ শতকে ফ্রান্সে ফিজিওক্র্যাট (Physiocrate) নামে। এক শ্রেণির অর্থনীতিবিদদের আবির্ভাব হয়। ফিজিওক্র্যাট কথাটির উদ্ভাবক ছিলেন নেমুর।

* বক্তা : ফিজিওক্র্যাট মতবাদের প্রবক্তা বা উদগাতা হলেন ফাঁসােয়া কুয়েসনে (Quesnay, ১৬৯৪-১৭৭৪ খ্রিস্টাব্দ)। ইংল্যান্ডে এই মতবাদের প্রবক্তা ছিলেন অর্থনীতিবিদ অ্যাডাম স্মিথ (Adam Smith, ১৭২৩-১৭৯০ খ্রিস্টাব্দ)। তিনি তার দ্য ওয়েলথ অফ নেশনস (The Wealth of Nations) গ্রন্থে অবাধ বাণিজ্য নীতির ধারণা ব্যক্ত করেন। ফরাসি অর্থনীতিবিদরা ছিলেন তার ভাবশিষ্য।

* ফিজিওক্র্যাট মতবাদের মূল কথা :

ব্যক্তিস্বাতন্ত্র্যবােধ : এই মতবাদে বলা হয় মানুষ নিজেই তার স্বার্থরক্ষার সবচেয়ে বড়াে বিচারক। মানুষের অর্থনৈতিক কাজে সরকারের নিয়ন্ত্রণ অন্যায়।

অবাধ বাণিজ্য : এই মতবাদের মূল কথা অবাধ বাণিজ্য। এজন্য অভ্যন্তরীণ শুদ্ধনীতির বিরােধিতা এবং খােলাবাজার নীতিকে সমর্থন করা হয়।

ভূমিকর প্রদান : এই মতবাদে বলা হয়, জমি হল সমস্ত সম্পদের উৎস। তাই প্রত্যেক জমির মালিকের ভূমিকর দেওয়া উচিত। ফ্রান্সের যাজক, অভিজাত, বুর্জোয়া সকলকেই ভূমিকর দিতে হবে |


প্রথম অধ্যায়  ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক বড় প্রশ্ন উত্তর,

নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায়ের ৮ নং প্রশ্ন উত্তর,ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক ৮ নং প্রশ্ন উত্তর,


(1)ফরাসি বিপ্লবের সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক কারণ আলােচনা করাে।

উত্তর ভূমিকা : ফ্রান্সের অধিবাসী ফরাসিরা ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে যে বিপ্লব ঘটিয়েছিল, তা ইতিহাসে ফরাসি বিপ্লব (French Revolution) নামে খ্যাত। এই বিপ্লবের মাধ্যমে ফরাসি জনগণের দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছিল। ঐতিহাসিকগণ বলেন যে, ফরাসিদের ওসামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক বৈষম্য ও ক্ষোভের কারণেই ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের বিপ্লব ঘটেছিল।


ফরাসি বিপ্লবের কারণ :

সামাজিক কারণ : ফরাসি বিপ্লবের অন্যতম প্রধান কারণ ছিল ফরাসি সমাজে বৈষম্য ও শােষণ। শ্রেণিবিভক্ত ফরাসি সমাজব্যবস্থা মধ্যযুগীয় সামন্ততন্ত্রের উপর ভিত্তি করে গড়ে উঠেছিল। ফরাসি সমাজে এই সময় প্রধান তিনটি শ্রেণি (এস্টেট) বর্তমান ছিল; যথা— প্রথম শ্রেণি (যাজকগণ), দ্বিতীয় শ্রেণি (অভিজাতবর্গ) এবং তৃতীয় শ্রেণি (ব্যবসায়ী, বুদ্ধিজীবী, কৃষক, শ্রমিক প্রভৃতি)। এই তিন শ্রেণির মধ্যে যাজক ও অভিজাত সম্প্রদায় ছিল বিশেষ অধিকারপ্রাপ্ত শ্রেণি’ ও তৃতীয় সম্প্রদায় ছিল অধিকারহীন শ্রেণি।

1 প্রথম শ্রেণি (First Estate) :ফরাসি সমাজব্যবস্থায় যাজকরা ছিল প্রথম শ্রেণিভুক্ত। বিপ্লবের পূর্বে এরা ছিলেন সুবিধাভােগী এবং ফ্রান্সের মােট জনসংখ্যার ১%-এরও কম। এদের মােট সংখ্যা ছিল ১ লক্ষ ২০ হাজার। অথচ এদের দখলে ছিল ফ্রান্সের মােট জমির ১০%। এই জমির জন্য এরা রাজাকে কোনাে প্রকার করও দিতেন না। যাজকরা ভূমিকর, ধর্মকর, মৃত্যুকর ইত্যাদি আদায় করলেও সরকারকে স্বেচ্ছাকর

ছাড়া অন্য কোনাে কর দিতে রাজি ছিলেন না। অথচ রাষ্ট্রের সবরকম সুযােগসুবিধা এরা ভােগ করতেন এবং বিলাসবহুল জীবনযাপন করতেন।

[2] দ্বিতীয় শ্রেণি (Second Estate) : ফরাসি সমাজে অভিজাতরা ছিলেন দ্বিতীয় শ্রেণিভুক্ত। এরা ছিলেন ফ্রান্সের মােট জনসংখ্যার প্রায় ১.৫% অর্থাৎ প্রায় ৩ লক্ষ ৫০ হাজার। অথচ ফ্রান্সের মােট জমি,২০% ছিল এদের দখলে | এরা জমির জন্য সরকারকে কোন পত্যখ্ কর দিতেন না। আবার সরকারের সামরিক ও অসামরিক বিভাগের উচ্চপদগুলিতে এদের একচেটিয়া অধিকার ছিল।

[3] তৃতীয় শ্রেণি (Third Estate) : ফরাসি সমাজের ব্যবসায়ী, কৃষক, শ্রমিক, বুদ্ধিজীবী, সর্বহারা সকলেই ছিলেন তৃতীয় শ্রেণিভুক্ত। এদের মােট জনসংখ্যা ছিল ফ্রান্সের মােট জনসংখ্যার ৯৭৩%-এর বেশি। সমাজে এদের বংশকৌলীন্য ছিল না। ফ্রান্সের। করের বােঝার বেশির ভাগটাই এদের বহন করতে হত। ফ্রান্সে সবক্ষেত্রে এরা ছিলেন অসাম্যের শিকার। তাই তৃতীয় শ্রেণিভুক্ত মানুষেরা তাদের প্রতি সমাজের উচ্চশ্রেণির মানুষের শােষণ,

(4], নিপীড়নের প্রতিবাদে বিপ্লবের পথ বেছে নিয়েছিলেন।


অর্থনৈতিক কারণ : অর্থনৈতিক দুরবস্থাও ফরাসি বিপ্লবের পথকে প্রশস্ত করেছিল।  


2.ফ্রান্সের করব্যবস্থার সংক্ষিপ্ত পরিচয় দাও। এই করব্যবস্থা ফরাসি সমাজের তৃতীয় সম্প্রদায়কে কীভাবে প্রভাবিত করেছিল ? 5+3

উত্তর ভূমিকা : বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে বুরবো (Bourbon) রাজবংশের রাজারা রাজত্ব করতেন। রাজাদের আয়ের প্রধান উৎস ছিল প্রজাদের কাছ থেকে আদায় করা বিভিন্ন ধরনের কর।

$ ফ্রান্সের করব্যবস্থা :১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে প্রচলিত করগুলিকে দুটি শ্রেণিতে বিভক্ত করা যায় প্রত্যক্ষ কর এবং পরােক্ষ কর।

 প্রত্যক্ষ কর ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে তিন ধরনের প্রত্যক্ষ কর প্রচলিত ছিল। যেমন- 0 ‘টেইলি’ (Taile) বা সম্পত্তিকর

ক্যাপিটেশন’ (Capitation) বা উৎপাদনকর এবং @ ‘ভিংটিয়েমে’ (Vingtieme) বা আয়কর। যাজক ও অভিজাতরা যথাক্রমে ফ্রান্সের ১ঠ অংশ এবং অংশ ভূসম্পত্তির মালিক হয়েও তারা রাষ্ট্রকে টেইলি দিতেন না। যাজকেরা রাষ্ট্রকে একপ্রকার স্বেচ্ছাকর প্রদান করতেন। যাজক এবং অভিজাত সম্প্রদায় রাষ্ট্রকে কোনাে প্রকার উৎপাদনকর এবং আয়কর প্রদান করতেন না। রাষ্ট্রের তিনটি প্রত্যক্ষ করই তৃতীয়

সম্প্রদায় বহন করত। কর আদায়ের জন্য ইনটেনডেন্ট’ (Intendent) নামক কর্মচারীরা সাধারণ মানুষের উপর অকথ্য অত্যাচার চালাত।

পরােক্ষ কর : প্রত্যক্ষ করের পাশাপাশি ফ্রান্সে বহু পরােক্ষ করও প্রচলিত ছিল। এগুলির মধ্যে উল্লেখযােগ্য হল- ‘টাইথ’ (Tithe) বা ধর্মকর, @ ‘গ্যাবেলা’ (Gabelle) বা লবণ কর, @ ‘এই’ (Aides) বা ভােগ্যপণ্যের উপর কর, ‘তেরাজ’ বা পথকর, ® করভি’ (Corvée) বা মকর, ® ব্যানালাইট’ (Banalités) বা শস্যদানা ভানার কর প্রভৃতি। পরােক্ষ করগুলিও সরকার, গির্জা ও সামন্তপ্রভুকে তৃতীয় সম্প্রদায়ের মানুষেরা দিতে বাধ্য থাকত। যাজক ও অভিজাতরা রাষ্ট্রকে কোনাে প্রকার পরােক্ষ কর দিতেন না।

করব্যবস্থা ও তৃতীয় সম্প্রদায় : ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে বিভিন্ন প্রকার প্রত্যক্ষ ও পরােক্ষ কর প্রচলিত ছিল। তবে এই সকল কর ফরাসি সমাজের সকল সম্প্রদায় বহন করত না। ফরাসি সমাজব্যবস্থা তিনটি সম্প্রদায়ে বিভক্ত ছিল। প্রথম সম্প্রদায়ভুক্ত যাজক এবং দ্বিতীয় সম্প্রদায়ের অভিজাতরা সকল প্রকার কর প্রদানের দায়িত্ব থেকে মুক্ত ছিলেন। এই দুই শ্রেণি ব্যতীত অবশিষ্ট যারা ছিলেন তারা তৃতীয় সম্প্রদায়ভুক্ত। দেশের মােট জনসংখ্যার প্রায় ৯৮% মানুষ ছিলেন তৃতীয় সম্প্রদায়ের সাধারণ মানুষ। এরা রাষ্ট্রের বিভিন্ন সুযােগসুবিধা থেকে বঞ্চিত হলেও রাষ্ট্রপ্রদত্ত সমস্ত প্রকার কর প্রদান করতে বাধ্য হতেন। প্রত্যক্ষ ও পরােক্ষ করের বােঝা বহন করে জীবনধারণ করা কষ্টকর হয়ে উঠলে তারা বিপ্লবমুখী হয়ে ওঠেন।


3. ফরাসি বিপ্লবে দার্শনিকদের (Philosophers) ভূমিকা আলােচনা করাে।

অথবা, ফরাসি বিপ্লবে দার্শনিকনের প্রভাব আলােচনা করো।

ভূমি : ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে ফরাসি বিপ্লবের ক্ষেত্রে বুদ্ধিজীবী বা দার্শনিকদের ভূমি ছিল বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। অষ্টাদশ শতাব্দীর ফ্রান্স ছিল নদীপ্তির যুগ। অষ্টাদশ শতিেদ্বতীয়ার্ধে ফ্রান্সে বুরবে রাজাদের স্বৈরাচারী শাসনের ফলে সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষেত্রে যে অসন্তোষ তৈরি হয় তাকে কাজে লাগিয়ে ফরাসি দার্শনিরা জনসাধারণের মনােজগতে পরিবর্তন বা বিপ্লব ঘটাতে সক্ষম হয়েছিনে। ভলতেয়ার, মন্তে রুশাে, দিনেরাে প্রমুখ দার্শনিরা তাদের রচনার দ্বারা রাসি জনসাধারণকে নিয়ে অধিকার সম্বন্ধে সচেতন করে তােলেন। এর ফলে যে বৈপ্লবিক ভাবতরণের সুষ্টি হয়, তা ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে ফরাসি বিপ্লবকে সম্ভব করে তুলেছিল।


 দার্শনিকদের ভূমিকা ;

 মস্তে (44ontesquieu). অষ্টাদশ শতাব্দীতে ফরাসি দার্শনিকদের মত্বেকং ই বিখত্র এখন

মধ্যে অগ্রণী ভূমিকা গ্রহণ করেন মন্তে। পেশায় আইনজীবী মতে ছিলেন নিয়মতান্ত্রিক রাজতন্ত্রের সমর্থক এবং ক্ষমতা স্বতন্ত্রীকরণ  নীতির প্রবক্তা। তিনি তার বিখ্যাত গ্রন্থ 'দ্য স্পিরিট অফ লজ' (The Spint of Laws)-এ রাজার দৈবস্বত্ব নীতির সমালােচনা করে ব্যক্তি স্বাধীনতা রক্ষার জন্য আইন, শাসন ও বিচারবিভাগের পৃথকীকরণের কথা বলেন। মন্তেঙ্কুর আর-একটি বিখ্যাত গ্রন্থ হল 'দ্য পার্সিয়ান লেটারস' (Tho Persian Letters)। এই গ্রন্থে তিনি বিপ্লব-পূর্ব ফরাসি সমাজব্যবস্থার তীব্র সমালােচনা করেন।

ভলতেয়ার (Voltaire) অষ্টাদশ শতাব্দীতে ফ্রান্স তথা ইউরােগের প্রখ্যাত দার্শনিক ভলতেয়ার একাধারে ছিলেন যুক্তিবাদী, কবি ও নাট্যকার। তার আক্রমণের অন্যতম লক্ষ্য ছিল চার্চ ও রাষ্ট্র। তিনি চার্চের দুর্নীতি ও ভ্রষ্টাচার সম্পর্কে উল্লেখ করে ফরাসি স্বৈরাচারী রাজতন্ত্রের তীব্র সমালােচনা করেন। তিনি ক্যাথলিক

গির্জাকে বিশেষ অধিকার প্রাপ্ত উৎপাত' বলে অভিহিত করেন। 'ভলতেয়ারের দুটি বিখ্যাত গ্রন্থ হল- কাদিদ' (Candide) ও লেতর ফিলজফিক' (Leties Philosophiquos)। এই প্রস্থ দুটিতে তিনি ধর্মীয়

রীতিনীতি ও কুসংস্কারের বিরুষ্পে প্রতিবাদ করেছিলেন। বুশাে (Rousseau) অষ্টাদশ শতাব্দীর দার্শনিকদের মধ্যে সর্বাপেক্ষা বৈপ্লবিক ছিলেন রুশাে। তাকে ফরাসি বিপ্লবের জনক' বলা

হয়। রুশাে ছিলেন নতুন সমাজ গঠনের পথপ্রদর্শক। তার রচিত বিখ্যাত গ্রন্থ হল— সামাজিক চুক্তি' (Social Contract) এবং ‘অসাম্যের সূত্রপাত (Origin of Inequality)। সামাজিক চুক্তি গ্রন্থে বুশাে বলেন যে, মানুষের মুক্তি ও নিরাপত্তার জন্য সামাজিক চুক্তির মাধ্যমে জনগণ রাষ্ট্র ও সমাজ গঠন করবে। তার মতে, জনগণই হল রাষ্ট্রীয় শক্তির উৎস এবং তারাই সার্বভৌম ক্ষমতার অধিকারী। জনগণের ইচ্ছা অনুযায়ী চুক্তির মাধ্যমে রাজা শাসনক্ষমতা লাভ করেন।

‘অসাম্যের সূত্রপাত' গ্রন্যে তিনি বলেন, মানুষ স্বাধীন হয়ে এবং সমান অধিকার নিয়ে জন্মায়। কিন্তু বৈষম্যমূলক সমাজব্যবস্থা তাকে দরিদ্র ও পরাধীন করে। এককথায় স্বৈরাচারী রাজতন্ত্রের

বিরােধিতা করে বুশাে সকল জনগণের সাম্য ও স্বাধীনতার কথা বলেছেন। বুকে এবং এর কার

দিদেবাে ও এলেমবার্ট (Diderot & Alember) ফরাসি দার্শনিক দেনিস দিদেৱাে (Donis Didorot) ও দ্য এলেমৰার্ট (D' Aleiben) ৩৫ খণ্ডের একটি বিশ্বকোশ সংকলন করেন (১৭৫১-১৭৮০ খ্রি)।

দর্শন, সমাজবিজ্ঞান, সাহিত্য প্রভৃতিতে সমৃদ্ধ এই বিশ্বকোশ পাঠ করে ফরাসিদের চিন্তাধারায় ব্যাপক আলােড়নের সৃষ্টি হয়। সিদের বলেছেন, মানুষ তার চারপাশের অবস্থাকে নিয়ন্ত্রণ ও পরিবর্তন করতে

পারে বলেই সে জীবজগতে শ্রেষ্ঠ। তার কথায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ফরাসি জাতি নিজ ভাগ্যকে নিয়ন্ত্রণ গ্রতে তৎপর হয়ে ওঠে।


5। ফিজিওক্র্যাটস (Physiocrats) ফরাসি বিপ্লবের প্রাক্কালে এনসাইকে। ফিজিওক্র্যাটস নামে একদল অর্থনীতিবিদের আবির্ভাব হয়। এরা অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সরকারি নিয়ন্ত্রণের পরিবর্তে অবাধ বাণিজ্য ও শিল্প বেসরকারিকরণের পক্ষপাতী ছিলেন। এই গােষ্ঠীর অন্যতম নেতা ছিলেন কুয়েসনে (Quesnay)


[TAG]:   ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক প্রথম অধ্যায় pdf, ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিকmcq,প্রথম অধ্যায় উত্তর ঔপনিবেশিক ভারত বড় প্রশ্ন উত্তর,নবম শ্রেণির বিশ শতকের ভারতে নারী ছাত্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর আন্দোলন,নবম শ্রেণির ইতিহাস  ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক,ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিকপ্রশ্ন উত্তর,নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায়,নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায়ের ২ নং প্রশ্ন উত্তর,নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায় বড় প্রশ্ন উত্তর,নবম শ্রেণির ইতিহাস প্রথম অধ্যায় প্রশ্ন উত্তর,




কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন